জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার নিয়ম

আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রই আপনার নাগরিকতার ধারক ও বাহক। এখন আবার আধুনিক যুগ। যার বদৌলতে অনলাইনে জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার নিয়ম অনুযায়ী জানা যায় মুহূর্তের মধ্যে। আর আজকে আমরা দেখব জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার নিয়ম সম্পর্কে।

কিছুদিন আগেও জাতীয় পরিচয়পত্র চেক করার জন্য আপনাকে উপজেলা/জেলা নির্বাচন অফিসে যেতে হত। দাড়াতে হত দীর্ঘ লাইনে। কিন্তু এখন আপনি ভোটার হওয়ার ফর্ম পূরণ করে ছবি তোলার কিছু দিন পরেই মূল কপি হাতে আসার আগেই অনলাইন থেকে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের অনলাইন কপি চেক করে নিতে পারেন। আবার সকল তথ্য সঠিক কি না তা দেখে নিতে পারবেন আপনার স্মার্ট ফোন থেকেই।

আজকে আমরা জানবো, অনলাইনে জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার নিয়ম। অর্থাৎ, কিভাবে ঘরে বসে অনলাইনে জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করা যায়। জানবো জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করার নিয়ম।জানবো, জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন করার নিয়ম সম্পর্কে। জানবো, অনলাইনে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন করতে কতদিন সময় লাগে।

অনলাইনে ঘরে বসে জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার নিয়ম

অনলাইনে জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার নিয়ম সম্পর্কে বাংলাদেশ সরকারের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে অত্যন্ত সহজ প্রক্রিয়া চালু করেছে সরকার। এজন্য আপনাকে প্রথমে জাতীয় পরিচয় পত্র সংক্রান্ত সকল সেবা দেওয়া ওয়েবসাইট services.nidw.gov.bd এ প্রবেশ করতে হবে।

এরপর জাতীয় পরিচয় পত্র সংক্রান্ত সকল সেবা পাবেন এখান থেকে। এবার চলুন, সিরিয়াল অনুযায়ী দেখে নেওয়া যাক অনলাইনে জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার নিয়ম সম্পর্কে।

জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার প্রথম ধাপ

১) প্রথমে জাতীয় পরিচয় পত্র সংক্রান্ত সকল সেবা দানকারী সরকারি ওয়েবসাইট services.nidw.gov.bd এ প্রবেশ করতে হবে।

ওয়েবসাইটে প্রবেশের পর নিচের ছবির মতো একটি পেজ ভিউ দেখতে পাবেন।

জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার নিয়ম
কিভাবে জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করবেন

জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার দ্বিতীয় ধাপ

২) এবার উপরের ছবির মতো একটি পেজ ভিউ দেখতে পাবেন। সেখানে রেজিস্তিশন করুন নামে একটি অপশন এবং লগইন করুন নামে একটি অপশন দেখতে পাবেন। আপনি যদি প্রথমবার অনলাইনে জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করতে চেয়ে থাকেন তাহলে রেজিস্টার করুন নামে অপশনটিতে ক্লিক করুন।

“ বলে রাখা ভালো, যদি আপনার আইডি কার্ডের ড্যাশবোর্ডে এর আগে প্রবেশ করে থাকেন তাহলে লগইন করুন বাটনে ক্লিক করে লগইন করে নিন। তবে ইউসারনেম পাসওয়ার্ড ভুলে গেলেও সমস্যা নেই”।

জাতীয় পরিচয় পত্র চেক তৃতীয় ধাপ

৩) রেজিস্টার করুন বাটনে ক্লিক করার পর নতুন একটি পেজভিউ দেখাবে।

যেখানে জাতীয় পরিচয় পত্রের ড্যাশবোর্ডে একটি একাউন্ট রেজিস্টার করতে হবে।

জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার চতুর্থ ধাপ

৪) একাউন্ট রেজিস্টার করার জন্য জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর অথবা ফর্ম নম্বর বসাতে হবে। এরপর জন্ম তারিখ বসাতে হবে। জন্ম তারিখ বসানোর ক্ষেত্রে দিন মাস এবং বছর পর্যায়ক্রমে বসাতে হবে।

আপনাদের বোঝার সুবিধার্থে আমরা একটি জাতীয় পরিচয় পত্র রেজিস্টার একাউন্ট ক্রিয়েট করে দেখানোর চেষ্টা করছি। আমরা একটি জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার জন্য সেই জাতীয় পরিচয় পত্রের নম্বর ব্যবহার করে রেজিস্টার ফর্মটি পূরণ করছি। 

( এখানে বলে রাখা ভালো, যারা এর আগে জাতীয় পরিচয় পত্র পান নাই তারা যখন জাতীয় পরিচয় পত্র করার জন্য ফর্ম পূরণ করে এবং ছবি তোলার সময় আপনাকে একটি টোকেন দেওয়া হয়েছিলো।সেই টোকেনে একটি ফর্ম নম্বর দেওয়া আছে। এখানে জাতীয় পরিচয় পত্র নাম্বার ব্যবহারের পরিবর্তে সেই ফর্ম নাম্বারটি ব্যবহার করতে হবে )।

জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার নিয়ম
জাতীয় পরিচয় পত্র নাম্বার ব্যবহার করে অ্যাকাউন্ট রেজিস্টার করতে হবে।

উপরের ছবিটির মতো আপনি আপনার যাবতীয় তথ্য দিয়ে নিচে লাল কালি দিয়ে চিহ্নিত সাবমিট লেখা অপশনে ক্লিক করেন। এবার আপনাকে পরবর্তী একটি পেজ এ নিয়ে যাওয়া হবে।

জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার ক্ষেত্রে ঠিকানা ব্যবহার

৫) এবার পরবর্তী পেজ এ আপনার বর্তমান এবং স্থায়ী ঠিকানা নির্বাচন করুন। এক্ষেত্রে ভোটার হওয়ার সময় য ঠিকানা ব্যবহার করেছেন সেই ঠিকানা ব্যবহার করতে হবে।

এক্ষেত্রে সাধারণত বর্তমান এবং স্থায়ী ঠিকানা একই দেওয়া হয়ে থাকে। এবং যে এলাকায় আপনি ভোটার হয়েছেন সেই এলাকার ঠিকানা ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

এক্ষেত্রে, প্রথমে বিভাগ, এরপর জেলা, এরপর উপজেলা ক্রমান্বয়ে সিলেক্ট করতে হবে।

এরপর পরবর্তী লেখা অপশনে ক্লিক করতে হবে।

জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার ষষ্ঠ ধাপ

৬) এবার পরবর্তী পেজ এ আসার পর ভোটার ফর্ম পূরণের সময়ে দেওয়া মোবাইল নাম্বারটি দেখাবে। যেখানে বলা হবে আপনার এই সিমটিতে একটি ওটিপি অর্থাৎ ৬ সংখ্যার পাসওয়ার্ড পাঠানো হবে। যদি সেই সিমটি সচল থাকে আপনি সেটাতেই পাসওয়ার্ড পাঠাতে পারবেন।

আবার চাইলে নাম্বার পরিবর্তন অপশনে ক্লিক করে নাম্বার পরিবর্তন করে নতুন নাম্বারে পাসওয়ার্ড পাঠাতে পারবেন।

এবার, পাসওয়ার্ডটি বসিয়ে পরবর্তী অপশনে ক্লিক করতে হবে। এবার আপনার সামনে তিনটি নির্দেশনা দেওয়া হবে।

যেখানে আপনার এন্ড্রয়েড মোবাইলে একটি অ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে।

এরপর সেই অ্যাপ ওপেন করে এখানে প্রদর্শিত হওয়া কিউ আর কোডটি স্কান করতে হবে।

কিউ আর কোডটি স্কান করা হলে আপনাকে আপনার মোবাইল স্ক্রিনে একাধিক লুকে ছবি তোলার স্টাইলে ছবি দেখাতে হবে। এক্ষেত্রে স্পষ্ট আলো এবং কান দেখানো ছবি দেখাতে হবে। এখানে, আপনার মোবাইল স্ক্রিনে এক এক  করে নির্দেশনা দেওয়া থাকবে। এই পদ্ধতিটি একদম সহজ।

এন্ড্রয়েড মোবাইলের প্লে স্টোর থেকে আপনাকে NID Wallet নামের একটি অ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে।

এক্ষেত্রে আপনি যে ডিভাইস থেকে এতক্ষণ সম্পূর্ণ কার্যক্রম সম্পন্ন করে আসছেন এই ডিভাইসটি ব্যবহার করতে পারবেন না।

অর্থাৎ আপনাকে অন্য একটি এন্ড্রয়েড ডিভাইস ব্যবহার করতে হবে।

আরও পড়ুনঃ নতুন আইডি কার্ড কিভাবে দেখব । ভোটার আইডি কার্ড চেক করার নিয়ম

এক্ষেত্রে আপনার কম্পিউটার বা ল্যাপটপ থাকলে এতক্ষণ করে সা কাজ সেই ডিভাইসে করে আপনার এন্ড্রয়েড মোবাইলে অ্যাপ ইন্সটল করে বাকি প্রসেস সম্পন্ন করুন।

NID Wallet অ্যাপ ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুনঃ NID Wallet Download

NID Card চেক করার সপ্তম ধাপ

আমরা আমাদের এন্ড্রয়েড মোবাইল থেকে NID Wallet App Download করে আমাদের কম্পিউটার স্ক্রিনে দেখানো কিউআর কোড স্কান করতে হবে।

এরপর যে জাতীয় পরিচয় পত্র টি চেক করবো তাকে দাড় করিয়ে ছবি দেখলাম।

এবার, অটোমেটিক আপনার নাম এবং যাবতীয় তথ্য দেখা যাবে।

(এক্ষেত্রে বলে রাখা ভালো, এখানে একটি পাসওয়ার্ড সেট করতে বলবে আপনাকে। আপনি চাইলে করতে পারেন। চাইলে নাও করতে পারেন )।

জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার অষ্টম ধাপ

জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার নিয়ম
এই পেজে আসার পর এখান থেকে আপনি জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করতে পারবেন। ডাউনলোড করতে পারবেন।

এবার আপনি আপনার স্ক্রিনে উপরের ছবিটির মতো আপনার চেক করতে চাওয়া জাতীয় পরিচয় পত্রের ব্যক্তিকে এরকম দেখা যাবে।

এবার এখানে দেখতে পাচ্ছেন প্রোফাইল, রিইস্যু, পাসওয়ার্ড পরিবর্তন এবং ডাউনলোড নামের চারটি অপশন দেখতে পাচ্ছেন।

এখানে থেকে প্রোফাইল অপশনে গিয়ে আপনি আপনার বের করা জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করে নিতে পারবেন।

আপনারা আপনাদের দেওয়া সব তথ্য দেখতে পাবেন।

জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করার নিয়ম

অনেকে জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করার নিয়ম জানতে চান। জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করার নিয়ম হচ্ছে উপরের সমস্ত নিয়ম মেনে এসে উপরের নিয়ম অনুযায়ী ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।  এখান থেকে জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করে নিতে পারেন। যা আপনি সব ধরনের কাজে অনায়াসে ব্যবহার করতে পারবেন।

চেক জাতীয় পরিচয় পত্র

 উপরে উল্লেখিত আঁটটি ধাপে যেকেউ নিজ বা অন্যের জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করে নিতে পারেন।

এভাবে ডাউনলোড করে সব্ধরনের কাজ করতে পারবেন জাতীয় পরিচয় পত্র অনলাইন কপি ব্যবহার করে।

আরও পড়ুনঃ নতুন ভোটার আইডি কার্ড করার নিয়ম

আমরা এতক্ষণে জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার নিয়ম সম্পর্কে জানতে পারলাম।

এই আঁটটি ধাপ সম্পন্ন করে একদম সহজে জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করা যাবে।

আবার জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করা যাবে।

আবার কোনো ভুল থাকলে তা সংশোধন করার জন্য আবেদন করা যাবে।

এবার জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার নিয়ম সম্পর্কিত কিছু প্রশ্ন উত্তর জেনে নেওয়া যাক।

জাতীয় পরিচয় পত্র সংক্রান্ত প্রশ্ন উত্তর । FAQS

প্রশ্নঃ অনলাইনে জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার নিয়ম কি?

উত্তরঃ অনলাইনে জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার নিয়ম হচ্ছে উপরোল্লিখিত আঁটটি ধাপ অনুসরণ করে জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করা যায়।

প্রশ্নঃ অনলাইনে জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার জন্য করণীয় কি?

উত্তরঃ সরকারি জাতীয় পরিচয় পত্র সংক্রান্ত সেবাকারি ওয়েবসাইট services.nidw.gov.bd এর সাহায্যে উপরের প্রসেস অনুযায়ী দুইটি আধুনিক ডিভাইস ব্যবহার করে এই কাজটি করতে পারবেন।

প্রশ্নঃ দেশে প্রথম জাতীয় পরিচয় পত্র করা শুরু হয় কবে?

উত্তরঃ বাংলাদেশে ২০০৮ সাল থেকে জাতীয় পরিচয়পত্র দেয়া শুরু হয়।

প্রশ্নঃ কিভাবে জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করা যায়?

উত্তরঃ services.nidw.gov.bd ওয়েবসাইট ব্যবহার করে উপরের নিয়ম মেনে জাতীয় পরিচয় পত্র চেক এবং ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

প্রশ্নঃ জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন ফি কত?

উত্তরঃ জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন ফি হচ্ছে ১১৫ টাকা।

প্রশ্নঃ জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন ফি দেওয়ার উপায় কি?

উত্তরঃ জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন ফি দেওয়া যায় হচ্ছে দিকাশ, রকেট, ওকে  ওয়ালেট ও টি ক্যাশ এর মাধ্যমে ঘরে বসেই পরিশোধ করা যায়।

জাতীয় পরিচয় সংক্রান্ত সর্বশেষ

আজকে আমরা জানতে পেরেছি অনলাইনে জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার নিয়ম সম্পর্কে।

আজকে উল্লেখিত আঁটটি ধাপ অনুসরণ করে যেকোনো ব্যক্তি নিজেই ঘরে বসে জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার নিয়ম অনুযায়ী চেক করতে পারবেন।

আবার জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করতে পারবেন।

আশা করছি আজকের পোস্টটি আপনার জন্য হেল্পফুল ছিলো।

এরপরেওয়ার কিছু জানতে চাইলে কমেন্টে জানান।

খুব তারাতারি আপনার কমেন্টের উত্তর দেওয়া হবে।

বিভিন্ন বিষয়ে নিয়মিত আর্টিকেল পড়তে আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করুন। চোখ রখুন আমাদের ব্লগ শেয়ারের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে

8 thoughts on “জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার নিয়ম”

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.