ওয়ার্ডপ্রেস কি কেন শিখব । ওয়ার্ডপ্রেস শিখতে কতদিন লাগে

বিশ্বের প্রায় ৫০% ওয়েবসাইট ব্যবহৃত হচ্ছে ওয়ার্ডপ্রেস সিএমএস এর মাধ্যমে। যখন ওয়ার্ডপ্রেস এক্সপার্ট হয়ে মানুষ লাখ লাখ টাকা ইনকাম করছে ঠিক তখন কেউ কেউ জানতে চান যে ওয়ার্ডপ্রেস কি কেন শিখব এবং ওয়ার্ডপ্রেস শিখতে কতদিন লাগে?

প্রিয় পাঠক, স্বাগত Dainik Kantha এর আজকের পোস্ট “ওয়ার্ডপ্রেস কি কেন শিখব । ওয়ার্ডপ্রেস শিখতে কতদিন লাগে” এ।

আজকের পোষ্টে আমরা ওয়ার্ডপ্রেস কি কেন শিখব, ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট তৈরিতে কি কি লাগে, ওয়ার্ডপ্রেস শিখতে করণীয় সমূহ সহ ওয়ার্ডপ্রেস শিখতে কতদিন লাগে সেসব বিষয়ে বিস্তারিত জানবো।

ওয়ার্ডপ্রেস কি

ওয়ার্ডপ্রেস হচ্ছে বিশ্বব্যাপী সকল সিএমএস সফটওয়ার এর মধ্যে সবথেকে জনপ্রিয় সিএমএস সফটওয়ার। কোনো কোডিং ছাড়াই ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করে ওয়েবসাইট বানানো যায়।

বর্তমানে থিম এবং প্লাগিন ব্যবহারে সব ধরণের ওয়েবসাইটে রূপ দেওয়া যায় ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইটকে।

আরও পড়ুনঃ  ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায়

What is WordPress বা ওয়ার্ডপ্রেস কি এমন প্রশ্নের উত্তরে এতটুকু জানলেই হবে না।

বরং ওয়ার্ডপ্রেসের কারিশমা জানতে আপনাকে ওয়ার্ডপ্রেসের শুরু থেকে শেষ সবটুকু ই জানতে হবে।

ওয়ার্ডপ্রেস হচ্ছে একটি ওপেন সোর্স সিএমএস। অর্থাৎ রেডি করা শুধু মাত্র আপনি কিছুটা কাস্টমাইজ করে, প্রয়োজন মতো প্লাগিন, থিম ব্যবহার করে আপনি আপানার মতো করে যেকোনো ওয়েবসাইট বানাতে পারবেন খুব সহজে।

আর এই সহজলভ্যতার জন্যেই সর্বশেষ ২০২২ সালের তথ্য অনুযায়ী বিশ্বের মোট ৫০ ভাগের মতো ওয়েবসাইট ওয়ার্ডপ্রেস দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে। যার সংখ্যা প্রায় ৪৫৫ মিলিয়নের বেশি।

ওয়ার্ডপ্রেস কেন শিখব

WordPress কি তা জানলেন। এবার জানতে চাচ্ছেন ওয়ার্ডপ্রেস কেন শিখবেন বা wordpress keno shikhbo?

ওয়ার্ডপ্রেস শিখবেন কারণ, আপনি ওয়ার্ডপ্রেস শিখলে কোডিং বা প্রোগ্রামিং ছাড়াই বা ডীপ লেভেলের কোডিং না জেনেই আপনি মার্কেট প্লেসে কিংবা লোকাল মার্কেটে অথবা নিজের ওয়েবসাইটে কাজ করতে পারবেন।

এতে করে মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করা যেমন সম্ভব তেমন দারুণ সম্ভাবনাময় এই সেক্টরে অনেক দূর যাওয়া সম্ভব।

দিন যত যাচ্ছে, প্রত্যেক কোম্পানি কিংবা প্রতিষ্ঠান সবার নিজেদের আইডেন্টিটি রক্ষায় হোক বা প্রয়োজনে হোক একটি ওয়েবসাইট চাচ্ছে। আর সেখানেই আপনি সেবাদিয়ে হয়ে যেতে পারেন গেইনার।

আপনার যদি নিজস্ব কোনো ব্যবসা, প্রোডাক্ট থাকে তাহলে তাও প্রচার করতে পারবেন খুব সহজেই।

যার ফলে আপনার কম্পিটিটরদের থেকে এগিয়ে থাকবেন কয়েক ধাপ।

আরও পড়ুনঃ ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো

ওয়ার্ডপ্রেস এমন এক জিনিস যে, কাঁদায় নেমে মাছ ধরবেন কিন্তু গায়ে কাঁদা লাগবে না।

কারণ, কোডিং করে যেখানে ওয়েবসাইট ডিজাইন বা তৈরি করা হয়। সেখানে আপনি কোডিং না করেই ওয়েবসাইট তৈরি, ডিজাইন থেকেশুরু করে সব করতে পারেন।

সেক্ষেত্রে নিঃসন্দেহে আপনার জন্য ওয়ার্ডপ্রেস হতে পারে সুন্দর এক সমাধান। কারণ বর্তমান সময়ে ওয়ার্ডপ্রেস কাস্টমাইজক কিংবা ডেভঁলপ শিখে হাঝার হাজার তরুন লাখ লাখ টাকা কামাচ্ছে ঘরে বসে।

ওয়ার্ডপ্রেস কেন শিখব অর্থাৎ সবকিছু থাকতে wordpress ই কেন শিখতে হবে? ওকে চলেন, ওয়ার্ডপ্রেস শেখার কারণ সমূহ জেনে নেওয়া যাকঃ

  • ওয়ার্ড প্রেস হচ্ছে একটি ওপেন সোর্স মাধ্যম।
  • ওয়ার্ডপ্রেস সম্পূর্ণ ফ্লেক্সিবিলিটি মেইনটেইন করে। 
  • ওয়ার্ডপ্রেস সাইট খুব সহজে এসইও অপটিমাইজেশন করা যায়। 
  • কাস্টম ডিজাইন ফ্লেক্সিবিলিটি অনেক বেশি।
  • এটি ইন্সটল করা বেশ সহজ। একা একা করা সম্ভব।
  • ওয়ার্ডপ্রেস সব ধরণের মাল্টিমিডিয়া সাপোর্ট করে 
  • ওয়ার্ডপ্রেস সাইট ১০০ এর অধিক ভাষা সাপোর্ট করে 
  • অসাধারণ ক্যারিয়ার গঠনের সুযোগ রয়েছে ওয়ার্ডপ্রেস শিখে।

ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট তৈরি

আপনি যদি ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট তৈরি করতে চান সেক্ষেত্রে একদম ফ্রিতে এবং শুধু মাত্র কিছু টাকা খরচ করে করতে পারেন।

কারণ, ওয়ার্ডপ্রেস দুই প্রকার। একপ্রকার হচ্ছে ওয়ার্ডপ্রেস ডট কম এবং অন্যটি হচ্ছে ওয়ার্ডপ্রেস ওয়ার্ডপ্রেস ডট ওআরজি।

সেক্ষেত্রে আপনি ওয়ার্ডপ্রেস ডট কমে ফ্রিতে একাউন্ট করে ওয়েবসাইট করতে পারবেন। কিন্তু সেখানে আপনি ওয়েবসাইটের যে নাম সিলেক্ট করবেন তার সাথে ডট ওয়ার্ডপ্রেস থাকবে।

আর ওয়ার্ডপ্রেস ওআরজি তে আপনার ইউনিক নাম ই থাকবে। নিচে দুটির ই উদাহরণ দেওয়া হয়েছেঃ

  • dainikkantha.com (ওয়ার্ডপ্রেস ডট ওআরজি তে এমন নাম হবে)
  • dainikkantha.wordpress.com (ওয়ার্ডপ্রেস ডট কম এ এমন হবে)

আরও পড়ুনঃ গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়

তাই নাম মাত্র ৮ থেকে ১০ ডলার খরচ করে একটি ডোমেইন কিনে নিলেই আর সাথে আরও ১০ থেকে ১৫ ডলার খরচ করে একটা হোস্টিং প্যাক কিনলেই আপনি ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে একটি ওয়েবসাইট করে ফেলতে পারবেন মুহূর্তেই।

বলে রাখা ভালো যে, বিশ্বের অন্যতম ডোমেইন হোস্টিং কোম্পানি নেমচিপ থেকে ডোমেইন হোস্টিং নিতে পারেন আমাদের মাধ্যমে। এছাড়াও ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে আপনার ব্লগ কিংবা ই কমার্স কিংবা পোর্টফলিও করে নিতে পারেন। বিস্তারিত জানতে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।

ডোমেইন হোস্টিং কেনার পড়ে প্রয়োজন অনুযায়ী ফ্রি কিংবা পেইড থিম এবং প্লাগিন ব্যবহার করে ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট রেডি করতে পারবেন মুহূর্তেই।

ওয়ার্ডপ্রেস শিখতে কতদিন লাগে

দেখেন, ওয়ার্ডপ্রেস সহজ। তবে আপনি যদি সময় না দেন কিংবা মন দিয়ে শেখার চেষ্টা না করেন তাহলে কোনোভাবেই সম্ভব না। আর আপনি চাইলে খুব কম সময়েই ওয়ার্ডপ্রেস শিখতে পারেন।

প্রতিদিন ৩ থেকে ৪ ঘণ্টা সময় দিয়ে আপনি ৫ থেকে ৬ মাসের মধ্যে ওয়ার্ডপ্রেস কাস্টমাইজ শিখতে পারেন। আর আরও ২ থেকে ৩ মাস বেশি সময় দিতে হবে ওয়ার্ডপ্রেস ডেভলপ শিখতে হলে।

তবে, আপনি চাইলে দৈনিক ৭ থেকে ৮ বা তার থেকেও বেশি সময় দিয়েও কম সময়ে শিখতে পারেন। কিন্তু মনে রাখবেন শুধু শিখলেই হবে না। মাথায় রেখে কাজ করতে হবে।

ওয়ার্ডপ্রেস শেখার ক্ষেত্রে আপনি নিচের রুটিন বা নির্দেশনাগুলি ফলো করতে পারেনঃ

  • ১ সপ্তাহ ওয়ার্ডপ্রেসের ড্যাশবোর্ড সম্পর্কে সার্বিক ধারণা নিবেন।
  • মাস খানেক সুয় নিয়ে ১০ থেকে ১৫ টি ফ্রি থিম কাস্টমাইজ করবেন।
  • মাস খানেক সময় নিয়ে ওয়ার্ডপ্রেস পেজ বিলডার শিখবেন ভালোভাবে
  • ২ মাস সময় নিয়ে প্রিমিয়াম থিম দিয়ে বেশ কিছু ওয়েবসাইট তৈরি করবেন
  • প্রফেশনাল পোর্টফলিও তৈরি করবেন। (মার্কেটপ্লেসে কাজ পেতে অত্যন্ত সাহায্য করবে)
  • অন্তত ২ মাস সময় নিয়ে ওয়ার্ডপ্রেস থিম ডেভলপমেন্ট শিখবেন।
  • যতক্ষণ না পারবেন একভাব লেগে থাকবেন। ইনশা আল্লাহ পারবেন।

এভাবে আপনি ইউটিউব, গুগল থেকে একদম ফ্রিতে যেকোনো এক বা একাধিক মেন্টরের ভিডিও কিংবা আর্টিকেল পড়ে পড়ে ওয়ার্ডপ্রেসের নাড়িভুঁড়ি সব সম্পন্ন করতে পারেন।

ওয়ার্ডপ্রেস সম্পর্কিত FAQ

ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে কি কি ওয়েবসাইট করা যায?

পৃথিবীর সবচেয়ে জনপ্রিয় সিএমএস সফটওয়্যার হচ্ছে wordpress

ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করে পিএইচপি ও এইচটিএমএল ছাড়াই ব্লগিং ওয়েবসাইট থেকে শুরু করে পেজ কাস্টমাইজ, থিম ও প্লাগিনের সাহায্যে সব ধরণের ওয়েবসাইট তৈরি করা যায় খুব সহজেই।

ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে যেসব ওয়েবসাইট করা যায তা হচ্ছেঃ


ব্লগ ওয়েবসাইট
ই- কমার্স ওয়েবসাইট
এডুকেশন ওয়েবসাইট
ইনভেস্টমেন্ট ওয়েবসাইট
ইত্যাদি সকল ওয়েবসাইট

ওয়ার্ডপ্রেসের সুচনা হয় কত সালে?

২৭ মে ২০০৩ সাল থেকে এখন পর্যন্ত নিরবিচ্ছিন্ন সার্ভিস দিচ্ছে।

ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে আয় করা যায়?

ওয়ার্ডপ্রেস দেখলে বা ভিজিট করলে টাকা দেয় না।

তবে, আপনি ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করা ওয়েবসাইট তৈরি করে সেখানে আপনার, কন্টেন্ট, প্রোডাক্ট কিংবা সার্ভিস সেল করে বা প্রোমোট করে আজীবন কোটি কোটি টাকা ইনকাম করতে পারবে।

এছারা ওয়ার্ডপ্রেস সম্পর্কিত সকল কাজ শিখে মার্কেটপ্লেস কিংবা লোকালি সার্ভিস দিয়ে অনেক ভালো পরিমাণ টাকা ইনকাম করা যায়।

ওয়ার্ডপ্রেস সম্পর্কে সর্বশেষ

প্রিয় পাঠক, আজকের পোষ্টে আমরা ওয়ার্ডপ্রেস কি কেন শিখব এবং ওয়ার্ডপ্রেস শিখতে কতদিন সময় লাগে সে সম্পর্কে বিস্তারিত জেনেছি।

আশা করছি ওয়ার্ডপ্রেস সম্পর্কে একটি বিস্তর ধারণা পেয়েছেন। এবং wordpress থেকে আসলে ইনকাম করার উপায় সমূহ সম্পর্কে জেনেছেন।

ওয়ার্ডপ্রেস সম্পর্কে অন্য কোনো বিষয়ে জানবো পরবর্তী কোনো আর্টিকেলে। এমন সম চমৎকার কন্টেন্ট পেতে ভিজিট করুন।

নিয়মিত আমাদের সকল আপডেট পেতে চোখ রাখুন অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ Dainikkantha  এ।

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.