বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার নিয়ম মাদ্রাসা । আলিম পরীক্ষার বোর্ড চ্যালেঞ্জ

প্রত্যেক বছর মাদ্রাসা বোর্ড থেকে অনেক শিক্ষার্থী এইচএসসি সমমান আলিম পরীক্ষায় অংশগ্রহণ  করে থাকেন। এদের অনেকেরই ফলাফল মন মত না হওয়ায় বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার নিয়ম মাদ্রাসা এর ক্ষেত্রে অনেকে জানতে চেয়ে থাকেন।

প্রিয় পাঠক, স্বাগত Dainik Kantha এর আজকের পোষ্ট “বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার নিয়ম মাদ্রাসা । আলিম পরীক্ষার বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার নিয়ম” এ।

আরও পড়ুন: বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার নিয়ম । এসএসসি খাতা পুন নিরীক্ষণ

আজকের পোষ্টে আমরা জানবো, মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ কি, মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ কখন করা হয়, বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে কি কি লাগে,  বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার নিয়ম মাদ্রাসা, অর্থাৎ মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ সম্পর্কে বিস্তারিত।

মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ কি

মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ বা খাতা পুনঃনিরীক্ষণ হচ্ছে, কোনো বোর্ড পরিক্ষায় পরীক্ষার্থীর রেজাল্ট এক বা একাধিক বিষয়ে ফেল/  অকৃতকার্য অথবা আশানুরুপ ফল না হলে ওই শিক্ষা বোর্ডকে উক্ত খাতাটি পুনরায় চেক করার জন্য আবেদন করাকে বোঝানো হয়।

আরও সহজ ভাবে বললে, মনে করেন, মাদ্রাসা বোর্ড থেকে পরীক্ষা দিয়েছেন। তবে, পরীক্ষা অনুযায়ী আপনার রেজাল্ট ভালো হয়নি, অথবা অনেক ভালো পরীক্ষা দিয়েছেন কিন্তু ফেল বা আশানুরুপ হয়নি।

আরও পড়ুনঃ এইচএসসি পরীক্ষার রেজাল্ট দেখার নিয়ম ২০২৪ (মার্কশিট সহ)

এমন মুহূর্তে বোর্ডের নিয়ম অনুযায়ী মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ করলে মাদ্রাসা বোর্ড আপনার খাতাটি পুণরায় চেক করে আবারো ফলাফল প্রকাশ করবে।

সাধারণত রেজাল্ট আশানুরূপ বা সন্তোষজনক না হলেই এইচএসসি বা সমমান তথা মাদ্রাসা বোর্ডের পরীক্ষার ফলাফলের পরে বোর্ড চ্যালেঞ্জ করা যায়। শিক্ষার্থীরা যেসব কারণে বোর্ড চ্যালেঞ্জ করা যায় তা হচ্ছেঃ

  • A+ মিস হলে কিংবা গোল্ডেন মিস হলে বোর্ড চ্যালেঞ্জ করে থাকে
  • খুব ভালো পরীক্ষা দিয়েও ফেল করলে বোর্ড চ্যালেঞ্জ করে থাকে
  • আশানুরূপ ফলাফল না হলে বোর্ড চ্যালেঞ্জ করে থাকে

আপনি যদি এইচএসসি পরীক্ষা দিয়ে থাকেন এবং উপরের যেকোনো এক বা একাধিক সমস্যা হয়ে থাকে তাহলে রেজাল্ট পরবর্তী নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে পারবেন।

মাদ্রাসা বোর্ডে চ্যালেঞ্জ করলে কিভাবে খাতা দেখে

অনেকের ধারণা যে মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ করলেই খাতাটি আবার নতুন করে দ্বিতীয় কোনও শিক্ষক দেখেন। প্রকৃত অর্থে এমন ধারনা একদ্ম ভুল।

মাদ্রাসা বোর্ডের রেজাল্ট পাবলিশের পরে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ করলে যে বিষয়ে বোর্ড চ্যালেঞ্জ করেছেন সেই খাতাগুলি পুনরায় কখনোই দেখা হয় না।

শুধু মাত্র ওই খাতার সকল প্রশ্নের উত্তরের প্রেক্ষিতে মার্কস দেওয়া হয়েছে কি না, মার্ক্স  সঠিক ভাবে যোগ করা হয়েছে না কি, এবং খাতায় প্রাপ্ত নাম্বার সঠিক ভাবে বোর্ডে পাঠানো হয়েছে কি না।

আরও পড়ুনঃ এইচএসসি বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার নিয়ম ২০২৩ সহ সবকিছু জেনে নিন

অর্থাৎ, বোর্ড চ্যালেঞ্জ করলে মুলত যেসব বিষয়গুলি পুনর্বিবেচনা করা হয় তা হলোঃ

  • সকল প্রশ্নের উত্তরে মার্কস দেওয়া হয়েছে না কি
  • মার্কস সঠিক ভাবে যোগ কয়া হইছে কি না
  • খাতার প্রাপ্ত মার্কস বোর্ডে সঠিক ভাবে পাঠানো হয়েছে কি না
  • বোর্ডে পাঠানো সঠিক নাম্বার পাবলিশ করা হয়েছে কি না

বোর্ড চ্যালেঞ্জ (মাদ্রাসা কিংবা সাধারণ বোর্ড) করলে এর বাহিরে কোনো কিছুই দেখা হয় না একটি খাতার।

তবে অনেক সময় অফিসিয়াল নির্দেশনার বাহিরে গিয়ে স্যার রা চাইলে ১/২ মার্কস বাড়িয়ে রেজাল্টে পরিবর্তন আনার সুযোগ রয়েছে।

অন্যদিকে সব থেকে ভালো বিষয় হচ্ছে, বোর্ড চ্যালেঞ্জ করলে কখনো আপনার নাম্বার কমানো হবে না।

এইচএসসি সাধারণ বা মাদ্রাসা বোর্ড এর খাতা আবারো পর্যবেক্ষণ কালে যদি দেখে ভুলে আপনাকে বেশি দেওয়া হয়েছে। তা কমানো হবে না।

তাই, রেজাল্ট পরিবর্তন করার ক্ষেত্রে রেজাল্ট কমার বা নাম্বার কমার ভয় বা আশংকা একদমই নাই।

তাই নির্দ্বিধায় মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ এর জন্য আবেদন করতে পারেন।

মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে কি কি লাগে

দেখুন, সবকিছুর মতো মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার ক্ষেত্রেও মাদ্রাসা বোর্ড থেকে দেওয়া নিয়ম মানতে হয়।

সেক্ষেত্রে প্রত্যেক বছর রেজাল্ট প্রকাশের পরপর সকল বোর্ড থেকে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার নিয়ম মাদ্রাসা এর সম্পর্কে করনীয় এবং সময়সীমা জানিয়ে দেওয়া হয়।

আরও পড়ুনঃ এইচএসসি রেজাল্ট ২০২৩ দেখার নিয়ম

মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে যা যা লাগেঃ

যে শিক্ষার্থী বোর্ড চ্যালেঞ্জ (মাদ্রাসা) করতে চান তার

  • রোল নাম্বার,
  • যেসব বিষয়ে বোর্ড চ্যালেঞ্জ করবেন তার সাবজেক্ট কোড,
  • শিক্ষার্থীর নিজের সচল মোবাইল নাম্বার,
  • বোর্ড থেকে নির্ধারণ করা ফি (প্রত্যেক সাবজেক্ট অনুযায়ী নির্ধারিত)
  • ব্যালেন্স থাকা টেলিটক সিম (যদি নিজে করতে চান)
  • আবেদন ফি (যদি আমাদের বা অন্য কাউকে দিয়ে করান)

মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ ফি বাবদ প্রত্যেক বছর বিষয় প্রতি ১৫০ টাকা ধার্য করা হয়। এবার আপনি কোন কোন সাবজেক্টে মাদারসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ আবেদন করবেন সেই কয় গুন ১৫০ টাকা লাগবে। এবং তৃতীয় কাউকে দিয়ে করালে তার ফি।

এক্ষেত্রে আপনার যদি টেলিটক সিম না থাকে বা নিজে করতে না পারেন, আপনার মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ এর আবেদনটি আমাদের দিয়ে করিয়ে নিতে পারেন।

আমাদের থেকে এসএসসি রেজাল্ট বের করার উপায়

শিক্ষার্থীদের ভোগান্তির কথা বিবেচনা করে আমরা শিক্ষার্থীর এসএসসি রেজাল্ট বের করে দিয়ে থাকি। আর এর পুরোটা আপনি অনলাইনে ঘরে বসে করতে পারবেন।

আমাদের মাধ্যমে এসএসসি রেজাল্ট বের করতে চাইলে নিচের যেকোনো একটি মাধ্যমে যোগাযোগ করুন।

আমাদের মাধ্যমে এসএসসি রেজাল্ট দেখা এবং রেজাল্ট পরবর্তী বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে নিচে যোগাযোগ করুন

Facebook Page: Dainikkantha
Whatsapp: 01752808514 (Personal Bkash+Nagad)

আমাদের মাধ্যমে রেজাল্ট বের করতে হলে নিচের স্টেপগুলি ফলো করুনঃ 

আপনার বোর্ড নাম, রোল, রেজিষ্ট্রেশন নাম্বার এবং পরীক্ষা সাল লিখে মেসেজ করুন। এবং উপরোক্ত নাম্বারে ২০ টাকা সেন্ড মানি করে লাস্ট ৪ সংখ্যা বলুন। 

উল্লেখ্য যে আমাদের মাধ্যমে নাম্বার সহ মার্কশিট বের করার জন্য ২০ টাকা এবং বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার জন্য সাবজেক্ট প্রতি ৫০ টাকা চার্জ প্রযোজ্য।

এসএসসি মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার নিয়ম ২০২৪

ইতিমধ্যে আপনাদের এইচএসসি বা আলিম পরীক্ষা ২০২৪ এর ফলাফল দিয়েছে। অনেকের রেজাল্ট খারাপ হওয়ায় মন খারাপ করছেন।

মনে রাখবেন, আপনাদের জন্য আরেকটি সুযোগ আছে। বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে পারেন।

আপনার পরীক্ষা ভালো হলে বোর্ড চ্যালেঞ্জ করলে অবশ্যই ফলাফল চেঞ্জ হয়ে ভালো ফলাফল আসবে ইনশাআল্লাহ।

আরও পড়ুনঃ কিভাবে বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে হয়

  • টেলিটক সিম থেকে মেসেজ অপশনে গিয়ে RSC লিখে স্পেস দিতে হবে।
  • শিক্ষা বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর অর্থাৎ MAD হাতে লিখে স্পেস দিন। 
  • শিক্ষার্থীর বোর্ড পরীক্ষার রোল নাম্বার লিখে স্পেস দিতে হবে।
  • বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে চাওয়া বিষয়ের সাবজেক্ট কোড লিখতে হবে।
  • একাধিক সাবজেক্ট হলে (,) দিয়ে দিয়ে সব গুলো বিষয়ের সাবজেক্ট কোড লিখুন।
  • মেসেজটি চেক করে দেখুন সব ঠিক আছে কি না দেখে 16222 এই নাম্বারে পাঠিয়ে দিন।

এমন একটি মেসেজ সেন্ড করার পরে টেলিটক সিমে ফিরতি একটি এসএমএস আসবে। সেই মেসেজে এই আবেদন বাবদ কত টাকা কেটে নেওয়া হবে এবং এই আবেদন করতে সম্মত আছেন কি না জানিয়ে একটি গোপন কোড দেওয়া হবে।

যদি আপনি ফিরতি আবেদন করতে আগ্রহী থাকেন এবং মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ আবেদন নিশ্চিত করতে চান তাহলে ফিরতি আবার আরেকটি এসএমএস পাঠাতে হবে।

দ্বিতীয় বার টেলিটক সিম থেকে মেসেজ অপশনে গিয়ে লিখতে হবেঃ

  • মেসেজ অপশনে গিয়ে RSC লিখে স্পেস দিন।
  • এরপর Yes লিখে স্পেস দিতে হবে।
  • এরপর ফিরতি এসএমএস এ আসা গোপন PIN বা কোড  নাম্বার টি লিখে স্পেস দিন।
  • এরপর আপনার ব্যক্তিগত যেকোনো সচল একটি মোবাইল নাম্বার দিন।
  • মেসেজটি চেক করে সঠিক ভাবে সব লিখছেন কি না তা দেখে পাঠিয়ে দিন 16222 নাম্বারে।

বেশ, যে নাম্বারটি আপনি দ্বিতীয় মেসেজে দিয়েছেন সেই সিমে একটি কনফার্মেশন মেসেজে বোর্ড চ্যালেঞ্জ মাদ্রাসা সফল হয়েছে তা জানিয়ে দেওয়া হবে। যেখানে বলা হয়েছে আপনার মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ এর আবেদনটি সঠিক ভাবে সম্পন্ন হয়েছে।

কিভাবে করবেন এইচএসসি মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ?

বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার নিয়ম মাদ্রাসা এর অনুযায়ী মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার ক্ষেত্রে আপনি তিনটি উপায় অবলম্বন করতে পারেনঃ

  • নিজে নিজে মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ আবেদন করতে পারেন
  • কম্পিউটারের দোকান থেকে মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ আবেদন করতে পারেন।
  • আমাদের মাধ্যমে মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ আবেদন করতে পারেন।

এক্ষেত্রে আপনি নিজে করলে ভালোই হবে। তবে বিগত দিনে দেখা গেছে অনেকেই নিজে নিজে বোর্ড চ্যালেঞ্জ এর আবেদন করতে গিয়ে ভুল কর বসছে। পরে আর বোর্ড চ্যালেঞ্জের আবেদন ই করতে পারেনি।

আবার কম্পিউটারের দোকান থেকে মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে গেলে বোর্ড চ্যালেঞ্জ ফি ব্যতিত প্রত্যেক সাবজেক্ট প্রতি ৫০ থেকে ১০০ টাকা চার্জ নিবে।

তাহলে আপনি যদি কম্পিউটারের দোকান থেকে ১ বিষয়ের প্রথম এবং ২য় উভয় পত্রে বোর্ড চ্যালেঞ্জ আবেদন করেন তাহলে আপনার কাছ থেকে বোর্ড চ্যালেঞ্জ ফি বাদে ১০০ থেকে ২০০ টাকা নিবে।

কিন্তু, আপনি যদি চান, আমাদের মাধ্যমে সাধারণ কিংবা মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ আবেদন করাবেন তাহলে প্রত্যেক সাবজেক্ট এর প্রত্যেক পত্রের জন্য মাত্র ২০ টাকা করে চার্জ দিলেই আমরা আপনার বোর্ড চ্যালেঞ্জ আবেদন করে দিতে পারবো।

আমাদের মাধ্যমে সাধারণ বা মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ আবেদন করলে যেকোনো দুইটি পত্রে বোর্ড চ্যালেঞ্জ করলে মাত্র ৪০ টাকা ফি দিতে হবে। যা অন্যান্য মাধ্যমের থেকে অনেক কম চার্জ।

এছারা অনেকগুলি বিষয়ে করলে নির্দিষ্ট একটি ডিস্কাউন্ট তো আছেই। আর আমাদের মাধ্যমে বোর্ড চ্যালেঞ্জ করলে তা হবে নির্ভুল, এবং দ্রুত।

আমাদের মাধ্যমে সহজেই বোর্ড চ্যালেঞ্জ করিয়ে নিন

আমাদের মাধ্যমে সাধারণ বা মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ আবেদন করাতে চাইলে নিচে উল্লেখিত তথ্য সমূহ আমাদের Facebook অথবা WhatsApp এ পাঠিয়ে দিন।

  • শিক্ষার্থীর বোর্ড নাম,
  • রোল এবং রেজিস্ট্রেশন নাম্বার,
  • বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে আগ্রহী সাবজেক্ট সমূহের কোড
  • শিক্ষার্থীর সচল মোবাইল নাম্বার

 উপরের তথ্যগুলি আমাদের দিন। আমাদের টীম মুহূর্তের মধ্যে আপনার সাথে যোগাযোগ করে আপনার বোর্ড চ্যালেঞ্জের আবেদনটি সম্পন্ন করে দিবেন।

আমাদের সাথে যোগাযোগের জন্য নিচের মাধ্যমগুলি ব্যবহার করুনঃ

  1. Facebook: Dainikkantha
  2. WhatsApp: 01752808514
  3. Website Contact form: Contact

বিঃদ্রঃ বোর্ড চ্যালেঞ্জের যাবতীয় ফি শুধু মাত্র নগদ/ বিকাশ এবং ইসলামী ব্যাংক এর মাধ্যমে গ্রহণ করা হয়।

মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ করলে কি পাশ দেওয়া হয়

না, সাধারণ বা মাদ্রাসা কোনো বোর্ড চ্যালেঞ্জ করলেই পাশ দেওয়া হয় না। এমনকি দ্বিতীয় বার খাতাও দেখা হয় না।

শুধু মাত্র খাতার সব লেখায় মার্কস দেওয়া হয়েছে কি না, মার্কস যোগ সঠিক আছে কি না তাই দেখা হয় সাধারণ বা মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ করলে।

আমাদের মধ্যে থাকা অনেকের ভুল ধারনা যে, যেকোনো বোর্ড চ্যালেঞ্জ করলেই বুঝি পাশ করিয়ে দেওয়া হয়।

কিন্তু এমন ধারণা ভুল। তবে, পরীক্ষা ভালো হলে অবশ্যই রেজাল্ট পরিবর্তন হয়ে আসে মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ করলে।

আর সব থেকে ভালো বিষয় এই যে, বোর্ড চ্যালেঞ্জ করলে কখনো মার্কস কমে না।

মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ সম্পর্কিত FAQ

মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার নিয়ম কি ?

সাধারণ এবং মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার নিয়ম একই। এজন্য টেলিটক সিম লাগবে।

এবং বোর্ড চ্যালেঞ্জ ফি প্রতি সাবজেক্ট ১৫০ টাকা আবেদন ফি বাবদ দিতে হয়। বিস্তারিত জানতে সম্পূর্ণ পোষ্টটি পড়ুন।

এইচ এস সি বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার নিয়ম কি?

Hsc madrasha bord challenge korar jonne ei post porlei sompurno bujhte parben.

বোর্ড চ্যালেঞ্জ সম্পর্কে সর্বশেষ

প্রিয় পাঠক, আজকের পোষ্টে আমরা বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার নিয়ম মাদ্রাসা এর উপায় জেনেছি।

আশা করছি এই পোষ্ট থেকে মাদ্রাসা বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার বিষয়ে সকল বিষয়ে জানতে পেরেছেন।

এ বিষয়ে বিস্তারিত আরও জানতে আমাদের Education Category ভিজিট করুন।

নিয়মিত আমাদের সকল পোষ্ট পড়তে Dainik Kantha ভিজিট করুন।

সর্বশেষ তথ্য পেতে চোখ রাখুন আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ Dainikkantha এ।

3 thoughts on “বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার নিয়ম মাদ্রাসা । আলিম পরীক্ষার বোর্ড চ্যালেঞ্জ”

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.